primary

call us : 0721-761660

EIIN NO: 134670

Login

At a Glance

  • Home
  • / About /
  • At a Glance

At a Glance

Rajshahi Education Board Model School & College

প্রতিষ্ঠান পরিচিতি

প্রমত্ত পদ্মাতীরে হযরত শাহ মখদুম রূপোশ (রহ:) এর স্মৃতিধন্য পুণ্যতোয়াভূমি, রেশমনগরী ও দেশনন্দিত শিক্ষানগরী রাজশাহীর প্রাণকেন্দ্র জেলা স্টেডিয়াম সংলগ্ন শালবাগানস্থ মনোরম পরিবেশে প্রতিষ্ঠিত রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড সরকারি মডেল স্কুল এন্ড কলেজ। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে এবং রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের অর্থায়নে প্রতিষ্ঠিত ও পরিচালিত এক অনন্য শিক্ষালয়। ২০১০ সালে একাদশ শ্রেণিতে বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখায় ছাত্র-ছাত্রী ভর্তির মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটি আনুষ্ঠানিকভাবে কার্যক্রম শুর” করে। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানে প্রায় ২২০০ ছাত্রছাত্রী অধ্যয়নরত।

লক্ষ্য উদ্দেশ্য

  • সরকার গৃহীত নতুন শিক্ষানীতির আলোকে বিজ্ঞানমনস্ক,প্রযুক্তিনির্ভর শিক্ষাদানের মাধ্যমে দক্ষ প্রজন্ম গড়ে তোলা।
  • সুশিক্ষার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মেধার পরিপূর্ণ বিকাশ ঘটানো।
  • প্রতিষ্ঠানই হবে প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার একমাত্র কেন্দ্রবিন্দু। এই লক্ষ্যে প্রথাগত প্রাইভেট টিউটর ও কোচিং এর ওপর নির্ভরশীলতা হ্রাসকরণ। বিভিন্ন পাবলিক পরীক্ষায় ভাল ফলাফল নিশ্চিতকরণে রয়েছে অতিরিক্ত ক্লাসের ব্যবস্থা।
  • ছাত্র-ছাত্রীদের চারিত্রিক ও মানবিক গুণাবলী সার্বিক বিকাশ সাধনের মাধ্যমে ভবিষ্যত মানবসম্পদ উন্নয়ন।
  • দেশের ইতিহাস, ভাষা আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধ, ঐতিহ্য, মূল্যবোধ, মানবতাবোধ, দেশপ্রেম এবং সৃজনশীল প্রতিভা বিকাশের মাধ্যমে সুনাগরিক হিসেবে শিক্ষার্থীদের গড়ে তোলা।
  • সর্বোপরি প্রতিষ্ঠানটিকে এই অঞ্চলের একটি অনুকরণীয় শিক্ষায়তনরূপে গড়ে তোলা এবং শিক্ষা বিস্তারে যুগোপৎ ভূমিকা পালন করা।
  • প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরে শিক্ষার সঠিক বুনিয়াদ নির্মাণে গণিত, বিজ্ঞান, কম্পিউটার, কৃষি, বাণিজ্য, শিল্প ও মানবিকবিদ্যার মাধ্যমে সাংস্কৃতিক ও ভাষাগত দক্ষতার পূর্ণবিকাশ এবং আইটি ও ই-বুকের প্রচলন।
  • পাঁচতলা ভিত বিশিষ্ট আরো একটি নতুন প্রশাসনিক ব্লক তৃতীয় ভবন স্থাপন নির্মানাধীন।

প্রতিষ্ঠানের বৈশিষ্ট্যসমূহ

অবকাঠামো

* কলেজ শাখায় অধ্যক্ষের অফিস ও প্রশাসনিক দপ্তর, শিক্ষক লাউঞ্জ, মসজিদ, ল্যাবরেটরি, ছাত্রী মিলনায়তন ও ১২ টি শ্রেণিকক্ষসহ চারতলা ভবন।

* স্কুল শাখায় শিক্ষক লাউঞ্জ, লাইব্রেরি, ছাত্র মিলনায়তন, ল্যাবরেটরি ও ২০ শ্রেণিকক্ষসহ চারতলা ভবন।

একাডেমিক কার্যক্রম

* প্রথম থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত অত্যাধুনিক উপকরণ ও সুসজ্জিত শ্রেণিকক্ষে পাঠদানের ব্যবস্থা।

*নিয়মিতভাবে বিষয়ভিত্তিক সাপ্তাহিক পরীক্ষা গ্রহণ, ১ম, ২য় টিউটোরিয়াল, অর্ধ বার্ষিকী ও বার্ষিক পরীক্ষার ব্যবস্থা।

সহশিক্ষা কার্যক্রম: শিক্ষার্থীদের মানসিক উৎকর্ষ সাধনের জন্য নিয়মিত পড়ালেখার পাশাপাশি এ প্রতিষ্ঠানে সহশিক্ষা কার্যক্রমের ব্যবস্থা রয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে বিতর্ক ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা, ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, আবৃত্তি প্রতিযোগিতা, শিক্ষাসফর, বিজ্ঞানমেলা ইত্যাদি।

ভাষা সংস্কৃতিচর্চা কেন্দ্র: বিশ্বায়নের সাথে তাল মিলিয়ে আমাদের নতুন প্রজন্মের সৃজনশীলতা, মেধার লালন-পালন ও চর্চার জন্য রয়েছে আধুনিক প্রযুক্তি দ্বারা সুসজ্জিত ভাষা ও সংস্কৃতিচর্চা কেন্দ্র।

শহীদ মিনার: ভাষা আন্দোলনের চেতনাকে সমুন্নত রাখতে কলেজ প্রাঙ্গনে শহীদ মিনার রয়েছে।

কম্পিউটার ল্যাব: ইন্টারনেট সংযোগসহ অত্যাধুনিক ২৪ টি কম্পিউটার সমৃদ্ধ কম্পিউটার ল্যাবের ব্যবস্থা।

মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম: নতুন প্রযুক্তির সাথে আগামী প্রজন্মকে পরিচয় করিয়ে দিতে এবং পুঁথিগত বিদ্যাকে সুস্পষ্টভাবে উপস্থাপন করার লক্ষ্যে আধুনিক মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টরের মাধ্যমে বিভিন্ন বিষয়ের ক্লাসের ব্যবস্থা।

লাইব্রেরি: ১০,০০০ বই ও জার্নালসহ একটি সমৃদ্ধ লাইব্রেরি।

বিজ্ঞানাগার: পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধা ও আধুনিক বৈজ্ঞানিক যন্ত্রপাতি সমৃদ্ধ বিজ্ঞানাগার।

ক্যান্টিন: ক্যাম্পাসে স্বাস্থ্যসম্মত খাবারসমৃদ্ধ ক্যান্টিনের ব্যবস্থা রয়েছে।

সাইকেল স্ট্যান্ড: নিরাপদ সুপরিসর সাইকেল স্ট্যান্ড।

নিরাপত্তা: প্রতিষ্ঠানের সার্বিক নিরাপত্তার জন্য চারদিকে প্রাচীর বেষ্টিত এবং প্রহরীর মাধ্যমে সার্বক্ষণিক নিরাপত্তার ব্যবস্থা। সম্পূর্ণ ধূমপানমুক্ত ও রাজনীতিমুক্ত একটি ক্যাম্পাস।

পরীক্ষা পদ্ধতি:

  • প্রতি অধ্যায় শেষে সাপ্তাহিক পরীক্ষা গ্রহণ এবং মাসিক অগ্রগতি অভিভাবক সমাবেশের মাধ্যমে অবহিত করণ।
  • একাদশ শ্রেণিতে অর্ধ-বার্ষিক ও বার্ষিক পরীক্ষা গ্রহণ।
  • দ্বাদশ শ্রেণিতে প্রাক-নির্বাচনি ও নির্বাচনি পরীক্ষা গ্রহণ।

ক্লাসে উপস্থিতি:

প্রতিটি শিক্ষার্থীকে নিয়মিত ক্লাসে উপস্থিত হতে হবে। ক্লাসে উপস্থিতির হার ৮০% হতে হবে। ৮০% এর কম হলে ননকলেজিয়েট এবং ৭০% এর কম হলে ডিসকলেজিয়েট করা হবে। কোন শিক্ষার্থী ডিসকলেজিয়েট হলে পরীক্ষায় অংশগ্রহণে অনুমতি দেয়া হবে না।